Main Menu

মঙ্গলবার, নভেম্বর ৩rd, ২০২০

 

ফ্রান্সের ঘটনা ও আওয়ামী সাম্প্রদায়িক রাজনীতি:  প্রয়োজন সতর্কতার

শিবলী সোহায়েল একটি দেশের সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা আরেকটি দেশের মানুষকে স্পর্শ করা স্বাভাবিক ।  ফ্রান্সে সরকারি ব্যবস্থাপনায় মহানবী (সা:) কে নিয়ে ব্যাঙ্গ বিদ্রূপ বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মানুষের হৃদয়ে আঘাত করেছে। মানুষ তাই ক্ষুব্ধ। আর বিক্ষুব্ধ হলে তারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করবে এটাই স্বাভাবিক। এটাই মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার।    বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ ধর্মপ্রাণ, যদিও বেশ কিছু ধর্মান্ধ ও  ধর্ম বিদ্বেষী চরমপন্থি রয়েছে।  এছাড়াও একটি বড় অংশ রয়েছে  সুযোগসন্ধানী। যাদেরকে যে কোন পরিস্থিতিতে ফায়দা লুটতে ওঁত পেতে থাকতে দেখা যায়। বিক্ষোভ কারিদের প্রয়োজন, এই সুযোগসন্ধানীদের স্বরূপ বুঝে তাদের প্রতি সতর্ক দৃষ্টি রাখা। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু মর্মান্তিকআরও পড়ুন


COVID-19 top issue for US voters as pandemic rages, survey says

With the coronavirus surging again, voters ranked the pandemic and the economy as top concerns in the race between President Donald Trump and Democratic rival Joe Biden, according to AP VoteCast, a national survey of the electorate. Voters were especially likely to call the public health crisis the nation’s most important issue, with the economy following close behind. Fewer named healthcare, racism, law enforcement, immigration or climate change. After eight months and at least 232,000 deaths, the candidates faced a dissatisfied electorate. Many voters said they have been personally affectedআরও পড়ুন


‘কোন ষড়যন্ত্রই আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে সরাতে পারবে না’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিডিআর হত্যাকান্ড ও হেফাজতে ইসলামের পদক্ষেপসহ বেশ কয়েকটি ষড়যন্ত্রের উল্লেখ করে জনসমর্থনের প্রতি আওয়ামী লীগের আস্থা পুনর্ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেন, ‘কেউ চাইলেই আওয়ামী লীগকে ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিতে পারবে না। যখন আমরা ২০০৮ এর পর থেকে সরকারে এসেছি অনেক ভাবে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের চেষ্টা করা হয়েছে, বিডি্আরের ঘটনা ঘটানো হলো, হেফাজতের ঘটনা ঘটানো, নানা ধরনের ঘটনা, বহু রকমের কারসাজির চেষ্টা করা হয়েছে।’  তিনি বলেন, ‘ষড়যন্ত্র করে খুন করে ফেলা যায়, হত্যা করে ফেলা যায়, কিন্তু জনসমর্থন না থাকলে ক্ষমতায় গিয়ে কেউ ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেআরও পড়ুন


তাকিয়ে আছে বিশ্ব কে হচ্ছেন পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট?

নিউইয়র্ক প্রতিনিধি: চলছে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সুপার পাওয়ার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বিশ্ব রাজনীতি ও অর্থনীতির অনেক নীতিই ঘুরপাক খায় এই মার্কিন মুলুককে কেন্দ্র করে। তাই কে হবেন আগামী চার বছরের জন্য দেশটির প্রেসিডেন্ট তার দিকেই তাকিয়ে আছেন বিশ্ব নেতারা। তবে এবার রেকর্ড পরিমাণ ভোট প্রদান ও জরিপের নানা তথ্যে কে হবেন শেষ মুহুর্তের বিজয়ী তা নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে মিত্র দেশগুলোর নেতাদের মধ্যে। বিশ্লেষকদের মতে, গত বারও পুপুলার ভোটে এগিয়ে ছিলেন হিলারি ক্লিনটন কিন্তু শেষ পর্যন্ত ইলেক্টোরাল ভোটে জিতে যান ট্রাম্প। তাই এবার জনমত জরিপে বাইডেন এগিয়ে থাকলেও চুড়ান্ত ফলাফলআরও পড়ুন


ম্যাক্রো মুসলিম একীভূতকরণ বিষয়ে ‘একেবারে ঠিক’ বললেন আমিরাতের মন্ত্রী

আমার দেশ ডেস্ক  সোমবার মহানবী মুহাম্মদ (সা) এর কার্টুনকে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক বিতর্কের মুখে মুসলমানদের সম্পর্কে ফরাসি রাষ্ট্রপতি ইমমানুয়েল ম্যাক্রনের বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কর্মকর্তারা। জার্মান দৈনিক ওয়েল্টকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ এই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন যে ফরাসী রাষ্ট্রপতি মুসলমানদের বিচ্ছিন্ন করার উদ্দেশ্য পোষণ করেছেন। তিনি বলেন, “ম্যাক্রো তার বক্তৃতায় যা বলেছিলেন তা আমাদের ভালভাবে শুনতে হবে। তিনি একেবারে পাশ্চাত্যের মুসলমানদের বিচ্ছিন্ন করতে চান না এবং তিনি একেবারেই ঠিক বলেছেন।” গারগাশ বলেন যে মুসলমানদের অবশ্যই আরও ভালভাবে একীভূতিত হতে হবে এবং ফ্রান্সেরআরও পড়ুন