Main Menu

বৃহস্পতিবার, জুলাই ২nd, ২০২০

 

ফের চিন, শুকর থেকে ছড়িয়ে পড়ছে ভয়ঙ্কর জি-৪ ভাইরাস

পরবর্তী খবর ভারতে তৈরি প্রথম করোনা টিকার হিউম্যান ট্রায়ালে মিলল ছাড়পত্র! ট্রায়াল শুরু জুলাই থেকেই Source link


এখনই শেষ হবে না করোনা বিশ্বমারী, তার কারণও ব্যাখ্যা করল WHO

নিজস্ব প্রতিবেদন: এখনই শেষ হওয়ার নয় করোনা সংক্রমণ। এমনকি বিশ্বমারী সংক্রমণ শেষ হওয়ার ধারে কাছেও নেই। একথাই সোমবার সাফ জানিয়ে দিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেডরস আধানম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে করোনা সম্পর্কে প্রথম যখন জানিয়েছিল চিন, তারপর ৬ মাস কেটে গিয়েছে। ১ কোটির বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন, ৫ লক্ষ মানুষের প্রাণ চলে গিয়েছে। আরও অনেকে আক্রান্ত হতে পারেন। ভাইরাস এখনও অনেক জায়গায় সংক্রমণ ছড়াবে। বিশ্বমারী শেষ হওয়ার নাম মাত্র ইঙ্গিত নেই। আরও পড়ুন: ফের চিন, শুকর থেকে ছড়িয়ে পড়ছে ভয়ঙ্কর জি-৪ ভাইরাস আধানম এ-ও বলেছেন, “আমরা সকলে চাই ভাইরাস শেষ হোক।আরও পড়ুন


জিনের গঠন পাল্টে ফেলছে চিনের করোনা ভাইরাস, নতুন রূপে হানা বিশ্বে

নিজস্ব প্রতিবেদন: বার বার রূপ বদলাচ্ছে নোভেল করোনাভাইরাস। শিকাগোয় যখন জানুয়ারি মাসে করোনা সংক্রমণের হদিশ মিলেছিল। সেই ভাইরাসের জিনগত গঠন ছিল চিনের করোনাভাইরাসের মতো। কিন্তু ফিনবার্গ স্কুল অব মেডিসিনের এগন অজার স্থানীয় রোগীদের শরীরে সম্পূর্ণ আলাদা এক জিনগত গঠনের করোনাভাইরাস দেখেন। সবাইকে অবাক করে দিচ্ছে এই ভাইরাসের পরিবর্তন। ভাইরাসের পৃষ্ঠে প্রোটিনের বিল্ডিং ব্লক হিসেবে প্রায় ১৩০০ অ্যামাইনো অ্যাসিড থাকে। কিন্তু পরিবর্তনের ফল মিউটেন্ট ভাইরাসে অ্যামাইনো অ্যাসিড ৬১৪। অ্যামাইনো অ্যাসিডের প্রকারও ডি থেকে জি হয়ে যেতে দেখছেন বিজ্ঞানীরা। আরও পড়ুন:এখনই শেষ হবে না করোনা বিশ্বমারী, তার কারণও ব্যাখ্যা করল WHO পরিবর্তনেরআরও পড়ুন


study করোনা থেকে সেরে ওঠার পর কাওয়াসাকি ডিজিজ ঝুঁকি বাড়াচ্ছে শিশুদের! দাবি সমীক্ষায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫ লক্ষ ছাড়িয়েছে। ভারতেও প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। তবে মৃত্যুর হার এখনও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। কিন্তু এরই মধ্যে চিন্তা বাড়াচ্ছে শিশুদের স্বাস্থ্য। দেখা গিয়েছে, ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পরও শিশুদের মধ্যে প্রদাহজনিত নানা সমস্যা মাথা চাড়া দিচ্ছে। জ্বর, সর্দি, ত্বক শুষ্ক হয়ে খোসা ওঠা, হাতের তালু বার বার ঘেমে ওঠার মতো সমস্যা দেখা দিচ্ছে শিশুদের মধ্যে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, এ ক্ষেত্রে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে রক্তের শিরা ও ধমনীর মাধ্যমে। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, এই সমস্যাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের পরিভাষায় কাওয়াসাকিআরও পড়ুন


করোনার চিকিৎসায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের দৌড় কত, পরীক্ষা করেছেন অক্সফোর্ডের গবেষকরা!

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের দৌড় কত, গত মে মাস থেকেই তা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেছিলেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। তবে ব্রিটিশ পত্রিকা ‘ল্যানসেট’ (The Lancet)-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের প্রয়োগে করোনা রোগীদের মৃত্যুর ঝুঁকি আরও বেড়ে যেতে পারে। ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, একশোটিরও বেশি আসপাতালের ৯৬ হাজারের বেশি করোনা আক্রান্তকে লক্ষ্য করে দেখার পর এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন গবেষকরা। ‘ল্যানসেট’ (The Lancet)-এ ওই প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরই করোনার চিকিৎসায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের প্রয়োগে সাময়িক স্থগিতাদেশ দিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)! পরে অবশ্য ওই স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়া হয়। করোনার চিকিৎসায়আরও পড়ুন