Main Menu

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ১৮th, ২০২০

 

প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখ থেকে বিশ্বকে বাঁচাতে হবে

তৌহিদা আক্তারঃ প্লাস্টিকের পণ্য আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। অনেক হালকা এবং দামে সস্তার কারণে প্লাস্টিক খুব জনপ্রিয়। দোকানে দোকানে পাতলা প্লাস্টিকের ক্যারিব্যাগের ছড়াছড়ি। বর্তমানে এমন যুগে বাস করছি যাকে প্লাস্টিক যুগও বলা যায়। ঘরে বাইরে আসবাবপত্র কিংবা খেলনা-যন্ত্রপাতিতে বা গাড়ি-উড়োজাহাজের বিভিন্ন অংশ, ল্যাবরেটরির বিভিন্ন কাজে দেখা যায় প্লাস্টিকজাত সামগ্রীর বহুল ব্যবহার। প্লাস্টিকের এই ব্যবহারের কারণ হলো এটিকে যেকোনো আকৃতি দেয়া যায়, রাসায়নিকভাবে উচ্চ প্রতিরোধ ক্ষমতাসম্পন্ন এবং কমবেশি নমনীয়তা গুণসম্পন্ন। কিন্তু পলিথিন ব্যাগ, কসমেটিক প্লাস্টিক, গৃহস্থালির প্লাস্টিক, বাণিজ্যিক কাজে ব্যবহৃত প্লাস্টিক পণ্যের বেশিরভাগই রিসাইক্লিং হয় না। এগুলো পরিবেশে থেকে বর্জ্যের আকার নেয়।আরও পড়ুন


‘ গরু কচুরিপানা খেতে পারলে আমরা কেন পারবো না’

স্টাফ রিপোর্টারঃ কচুরিপানাকে খাওয়ার উপযোগী করা যায় কিনা, একই সঙ্গে কাঁঠালকে আরো ছোট করা যায় কিনা, তা নিয়ে গবেষণা করতে পরামর্শ দিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। সোমবার দুপুরে এনইসি-২ সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘কচুরিপানাকে খাওয়ার উপযোগী করা যায় কি না, দেখেন। গরু তো খায়, গরু খেতে পারলে আমরা কেন পারবো না। গবেষণা করে তাদের জন্য হলেও পুষ্টি বাড়ানো যায় কি না, তা দেখা যাক।’ তিনি আরো বলেন, ‘কাঁঠালের আকার অনেক বড় হওয়ায় প্রায় ৪০ শতাংশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আপনারা কাঁঠালের আকারটা আরেকটু ছোটআরও পড়ুন


ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা তাপস পাল আর নেই

বিনোদন ডেস্কঃ ভারতীয় বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল আর নেই।মঙ্গলবার ভোররাতে ভারতের মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা ও এনডিটিভির। তাপস পাল একের পর এক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। মাত্র ২২ বছর বয়সে মুক্তি পায় তাপস পালের প্রথম ছবি ‘দাদার কীর্তি’। এর পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। শুধু অভিনয় নয়, কৃষ্ণনগর লোকসভা থেকে তৃণমূলের সাংসদও ছিলেন তাপস পাল। তাপস পালের জন্ম ১৯৫৮ সালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায়। তিনি বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে হুগলি মহসিন কলেজ থেকেআরও পড়ুন


চীনে মুসলিমদের বন্দি রাখার গোপন নথি ফাঁস করেছে সিএনএন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ চীনের উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের সংখ্যালঘু লোকজনসহ বেইজিংয়ের গণ আন্দোলনের ন্যায্যতা দাবি করা অনেক নাগরিকদের বন্দি করে রাখার একটি গোপন নথি ফাঁস হয়েছে। দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির দ্বারা বিদ্রোহীদের দমন প্রক্রিয়ার এমন গোপন নথিটির খবর প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সিএনএন। গণমাধ্যমটিতে বলা হয়, চীনের সংখ্যালঘু উইঘুরে মুসলিম সম্প্রদায়ের কেবল একটি পরিবার নয়, শতশত পরিবার কিংবা দেশটির লক্ষ লক্ষ নাগরিককে তুচ্ছ কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য গোপনে আটকে রাখা হতো। চীনা কমিউনিস্ট পার্টির এমন নিয়ম প্রথমবারের মত প্রকাশ করেছে দেশটির কিছু উইঘুরের সোচ্চাররা। এটা ছিল তৃতীয়বারের মত চীনা সরকারের স্পর্শকাতর তথ্য ফাঁসেরআরও পড়ুন


ভালোবাসা দিবসে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে তিন বন্ধু মিলে ধর্ষণ

খুলনা ব্যুরোঃ ভালোবাসা দিবসে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে নিয়ে সারাদিন ঘুরে বেড়ানোর পর তিন বন্ধু মিলে রাতভর ধর্ষণ করার ঘটনার ঘটেছে খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার চন্দনীমহল এলাকায়। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করলেও ধর্ষণের দৃশ্য ভিডিওধারণকারীকে আড়াল করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই সঙ্গে ধর্ষণের ভিডিও গায়েব করে দেয়া হয়েছে বলেও সূত্র জানিয়েছে। মেয়েটিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। একাধিক সূত্র জানায়, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি দৌলতপুরে ফুপুর বাড়ি থেকে সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে নিয়ে ঘুরতে বের হয় চন্দনীমহল এলাকার শাহিন (২৬) ও তার বন্ধু কাজলআরও পড়ুন