Main Menu

শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২৩rd, ২০১৯

 

সুদানে ১ বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারি

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশির দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার ভেঙ্গে এবং সব প্রদেশের গভর্নরদের পদচ্যুত করে গোটা দেশে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশির জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেন। পরে অবশ্য তিনি সশস্ত্র বাহিনী থেকে নতুন করে প্রাদেশিক গভর্নর নিয়োগ দিয়েছেন। সুদানের জাতীয় নিরপত্তা ও গোয়েন্দা সংস্থার (এনআইএসএস) পক্ষ থেকে অবশ্য এর আগে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট বশির ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন। উল্লেখ্য, দেশটিতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা সরকারবিরোধী বিক্ষোভেরআরও পড়ুন


চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াবে বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টারঃ পুরান ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের সাধ্যমত সাহায্যের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে অগ্নিদগ্ধদের খোঁজ-খবর নিতে এসে এ ঘোষণা দেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপি মহাসচিব ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে অগ্নিদগ্ধদের বিষয়ে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং আহতদের আত্মীয় স্বজনের সঙ্গেও কথা বলেন। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, দল হিসেবে বিএনপি এখন অত্যন্ত প্রতিকূল অবস্থায় আছে। তবুও আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াব। তাদের সাধ্যমতো সাহায্য করার চেষ্টা করব। সরকারি অব্যবস্থাপনার অভিযোগ করে ফখরুল বলেন, সরকারের পক্ষআরও পড়ুন


বিয়ের দাওয়াত না দেয়ায় আ.লীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, বাড়িঘর ভাঙচুর

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ বরযাত্রীর দাওয়াত না পেয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামে। এ ঘটনায় দুই জনকে মারধর করা হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে ১০টি বাড়ি। গতকাল শুক্রবার সকালে আওয়ামী লীগের দুই গ্রæপের মধ্যে এই ঘটনা ঘটে। আহতদের শৈলকুপা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপ গোবিন্দপুর গ্রামের ইউপি সদস্য মোনায়েম ও কিবরিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। শুক্রবার কিবরিয়ার বিয়ের বরযাত্রী যাওয়ার দাওয়াত না পেয়ে মোনায়েমের লোকজন কিবরিয়ার কর্মী-সমর্থকের উপর হামলা চালায়। পরে বরযাত্রী যাওয়া বাদ রেখে উভয় পক্ষের লোকজনআরও পড়ুন


চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে সবই পুড়ল, কিন্তু কালিমা অক্ষত

স্টাফ রিপোর্টারঃ চকবাজার চুড়িহাট্টার ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে জান, মালসহ ইট-পাথরের বিল্ডিং পুড়ে কঙ্কাল হয়ে গেলেও অক্ষত রায়েছে পবিত্র কালিমা ‘লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’ (স.)। গতকাল শুক্রবার ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পুরো এলাকাটি যেন এক মৃত্যুপুরীর আকার ধারণ করেছে। আগুনে পুড়ে যাওয়ার চিহ্ন বহন করছে এলাকার দালানকোটাসহ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো। মালামালসহ সব জিনিসপত্রই পুড়ে ছাই। আগুনে পোড়া ধ্বংসস্তূপের মধ্যে শুধু জ্বলজ্বল করছে ওয়াহিদ ম্যানশনের নীচতলায় রাজমনি হোটেলের প্রবেশদ্বারে সাঁটানো পবিত্র কালিমা ‘লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’ (স.)। পুরান ঢাকার চকবাজারের ভয়াবহ আগুন কেড়ে নিয়েছে বহু কিছু। আগুনে অঙ্গার হয়েছে ৬৭ প্রাণ।আরও পড়ুন


পুলিশের এমন নির্লজ্জ পক্ষপাতের নির্বাচন বিশ্ববাসী এর আগে কোথাও দেখেনি

স্টাফ রিপোর্টারঃ ৩০ ডিসেম্বর দেশে কোন নির্বাচন হয় নাই। যা হয়েছে তাকে নির্বাচন বলা যায় না। সেটা নির্বাচনের নামে প্রহসন হয়েছে। সারাদেশে পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় ২৯ তারিখ দিবাগত রাতে ব্যালটে নৌকায় সিল মেরে বাক্স ভরা হয়েছে। ভোটের দিনও ধানের শীষের এজেন্টদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি। অনেক স্থানে এজেন্টদের মারধর করে বের করে দেয়া হয়েছে। নির্বাচন আওয়ামী লীগ করেনি, করেছে পুলিশ আর প্রশাসন। আর নির্বাচন কমিশন পুলিশের অধীনে কাজ করেছে। ধানের শীষের নেতাকর্মীদের নামে গায়েবী মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে পুলিশ সারাদেশে এক ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। পুলিশ প্রশাসনের এমন নির্লজ্জ পক্ষপাতেরআরও পড়ুন