Main Menu

ডিসেম্বর, ২০১৮

 

বিদায় ঘটনাবহুল ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টারঃ ‘ফোটে যে ফুল আঁধার রাতে/ঝরে ধুলায় ভোর বেলাতে/আমায় তারা ডাকে সাথে- আয় রে আয়।/সজল করুণ নয়ন তোলো, দাও বিদায়…।’ গানে গানে কথাগুলো বলেছিলেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। সব বিদায়ের সঙ্গেই লুকিয়ে আছে এমন আনন্দ-বেদনার কাব্য। সেটা বর্ষবিদায়ের বেলায়ও। আজ আমাদের জীবন থেকে বিদায় নেবে আরেকটি খ্রিস্টীয় বছর। ২০১৮ সালের শেষ সূর্যটি গোধূলির পর হারিয়ে যাবে মহাকালের গর্ভে। আর রাত ১২টা পেরোলেই শুরু হবে নতুন খ্রিস্টীয় বছর ২০১৯। আমাদের জীবনের সব কর্মকাণ্ড ইংরেজি সালের গণনায় হয় বিধায় খ্রিস্টীয় বছর অত্যন্ত গুরুত্ব বহন করে। সেই বিবেচনায় বিদায়ী বছরটা কেমনআরও পড়ুন


নির্বাচনী পরিবেশ নিয়ে মন্তব্য করতে নারাজ আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক

স্টাফ রিপোর্টারঃ জামেয়া মাদানিয়া বারিধারা। এক প্রতিষ্ঠানে ৩ কেন্দ্র। ১৪৭, ১৪৮, ১৪৯। কুড়িল বিশ্বরোড সংলগ্ন নতুন বাজার এলাকার ওই মাদরাসায় দুপুর ১২টায় দেখা যায় বাইরে লোকজনের জটলা। কিন্তু ভোটার লাইন ফাঁকা। বুথে বুথেও ভোটারদের উপস্থিতি নিতান্তই হাতেগোনা। তবে বাহির ও ভেতরের পরিবেশ মোটামুটি শান্তিপূর্ণ- এমনটাই জানালেন প্রবেশ গেটে থাকা গিয়াস উদ্দিন নামের এক পোলিং অফিসার। তিনি ১৪৭ নম্বর কেন্দ্রের দায়িত্বে ছিলেন। অবশ্য তিনি ভোটার উপস্থিতি নিয়ে খানিক হতাশা ব্যক্ত করেন। কথা হয় ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আসাদুজ্জামানের সঙ্গেও। পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি বলেন, ৪ ঘণ্টায় প্রায় ২৫ ভাগ ভোট কাস্টআরও পড়ুন


ভোটকেন্দ্রের ছবি তুলতে গিয়ে হামলার শিকার আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

স্টাফ রিপোর্টারঃ নন্দিত আলোকচিত্রী শহিদুল আলমসহ তার কয়েকজন সহকর্মীর ওপর হামলা করেছে ক্ষমতাসীন দলের প্রতীক বহনকারী নেতাকর্মীরা। গতকাল সকালে ধানমণ্ডি সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে অবস্থিত ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। পরে শহিদুলের নিজস্ব ওয়েবসাইট শহিদুল নিউজ ডটকমে হামলার বিবরণ তুলে ধরা হয়। বলা হয়, শহিদুল আলম ও লেখিকা রাহনুমা আহমেদসহ দৃক-এর আলোকচিত্রী পারভেজ আহমেদ, সুমন পাল ও মাহতাব উদ্দীন আহমেদ সকাল সোয়া ৮টার দিকে ধানমণ্ডি সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রে যান। সস্ত্রীক ভোট দেয়ার পর শহিদুল ভোটকেন্দ্রের ছবি নিচ্ছিলেন। নির্বাচন কমিশন থেকে দেয়া তার অ্যাক্রেডিটেশন কার্ড দৃশ্যমান ছিল। এ সময় কয়েকজন তার দিকেআরও পড়ুন


ভোট দিতে গিয়ে রক্তাক্ত বিএনপির প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টারঃ ভোটের দিন সকালে ঢাকা-৪ আসনে বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমদের ওপর হামলা হয়েছে। এতে রক্তাক্ত হয় এ প্রার্থী। পরে তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সালাহউদ্দিনের ছেলে রবীন জানিয়েছেন, সকাল সোয়া নয়টার পরে তার বাবা শ্যামপুর সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভোট দিতে গেলে তার ওপর হামলা হয়। আহত অবস্থায় তাকে এ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলায় তাদের ১৫ থেকে ১৬ জন কর্মী আহত হয়েছেন। তার বাবার পিঠে ও পেটে কোপ লেগেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সোয়া ৯টার দিকে সালাউদ্দিন ওই কেন্দ্রে ভোট দিতে যান। সে সময় আওয়ামী লীগআরও পড়ুন


দেশজুড়ে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ২১

স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশজুড়ে নির্বাচনী সহিংসতায় অন্তত ২১ জন নিহত হয়েছেন। গতকাল নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলাকালে প্রতিপক্ষের হামলা, পুলিশের গুলিতে তাদের মৃত্যু হয়। নিহতদের মধ্যে রাজশাহীর মোহনপুর ও গোদাগাড়ীতে আওয়ামী লীগের ২ কর্মী,  নাটোরের নলডাঙায় আওয়ামী লীগ কর্মী,  রাঙ্গামাটিতে যুবলীগ কর্মী, কক্সবাজারের পেকুয়ায় নৌকার সমর্থক, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম ও    চান্দিনায় বিএনপির ২ কর্মী, চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে জাতীয় পার্টির কর্মী, পটিয়ায় ছাত্রসেনা ও যুবলীগ কর্মী, টাঙ্গাইলের গোপালপুরে বিএনপির এক কর্মী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক যুবক, বগুড়ার কাহালুতে আওয়ামী লীগ কর্মী, নরসিংদীতে আওয়ামী লীগ কর্মী, সিলেটের বালাগঞ্জে ছাত্রদল নেতা,  লক্ষ্মীপুরের দত্তপাড়ায় এক যুবক, গাজীপুরে আওয়ামী লীগ কর্মী, নোয়াখালীতেআরও পড়ুন