Main Menu

রবিবার, অগাস্ট ৫th, ২০১৮

 

ফটো সাংবাদিক শহিদুল আলমকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে গেছে ডিবি

স্টাফ রিপোর্টারঃ বিখ্যাত ফটোগ্রাফার ও দৃক গ্যালারির ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহীদুল আলমকে তুলে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দৃকের জেনারেল ম্যানেজার এএসএম রেজাউর রহমান বলেন, রোববার রাতে তার নিজ বাসা থেকে একদল দুর্বৃত্ত তাকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। রাতে তিনি ধানমণ্ডি মডেল থানায় অপহরণের মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে অভিযোগ হিসেবে গ্রহণ করেছে। রেজাউর রহমান বলেন, শহীদুল আলম ধানমণ্ডির ৯ নম্বর সড়কের ৩২ নম্বর বাসায় থাকেন। রোববার দিবাগত রাত ১০টার দিকে একটি হাইএস মাইক্রোবাসে কয়েকজন যুবক তার বাসায় আসেন। এরপর তারা বাসা থেকে জোরপূর্বক শহীদুল আলমকে অপহরণ করে নিয়ে যান।আরও পড়ুন


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপর ছাত্রলীগের হামলা

স্টাফ রিপোর্টারঃ নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষার্থীবৃন্দ’র সমাবেশে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ। রোববার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মোটরসাইকেল মহড়া থেকে এ হামলা করা হয়। মহড়ার নেতৃত্বে ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার বিকালে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ ডাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষার্থীরা। রাজধানীর শাহবাগ থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে রাজু ভাস্কর্যে আসে। পরে সেখানে অনুষ্ঠিত হয় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে। সমাবেশ চলাকালীন রাজু ভাস্কর্য এলাকায় প্রায় অর্ধশত মোটরসাইকেলের মহড়াআরও পড়ুন


শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে স্কুলশিক্ষিকা গ্রেফতার

রাসেল মোল্লা, কলাপাড়া প্রতিনিধিঃ  নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনে ফেসবুকে উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নুসরাত জাহান সোনিয়া নামে এক স্কুলশিক্ষিকাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার রাত ১টা ৫ মিনিটে পৌর শহরের কবি নজরুল ইসলাম সড়কের ভাড়া বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে কলাপাড়া থানা পুলিশ। সোনিয়া উপজেলার দক্ষিণ টিয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। কলাপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) আলী আহম্মদ জানান, আটক শিক্ষিকা সোনিয়ার বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়েছে এবং তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।


আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর নৃশংস হামলা ও হিংস্রতাকে সমর্থন করা যায় না

স্টাফ রিপোর্টারঃ ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক ও বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের বিচার দাবিতে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস। রোববার ফেসবুকে মার্কিন দূতাবাসের অফিসিয়াল পেজে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়, নিরাপদ সড়কের দাবিতে দেশব্যাপী চলমান ছাত্র আন্দোলনে সহিংস হামলা কোনোভাবেই সমর্থন করা যায় না। গত সপ্তাহ থেকে সড়কে উন্নত যানবাহন ও নিরাপত্তার দাবিতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণভাবে যে আন্দোলন করছে তা মানুষের মনোযোগ আকর্ষণ করেছে। বিবৃতিতে বলা হয়, কিন্তু কাণ্ডজ্ঞানহীনভাবে সম্পত্তি বিনষ্ট করা, বিশেষ করে বাস ও অন্যান্য যানবাহন ধ্বংসের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের ওই কর্মকাণ্ডেআরও পড়ুন


প্রধানমন্ত্রী নিজেই নৌমন্ত্রীকে সরিয়ে দিতে পারেন

ফয়সল সাইফঃ হৃদয়কে নাড়িয়ে দেয় এমন কোনো দুর্ঘটনার পর উন্নত বিশ্বে আমরা প্রায়ই দেখতে পাই সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। মাঝেমধ্যে প্রধানমন্ত্রী বা প্রেসিডেন্টকেও পদত্যাগ করতে দেখা যায়। ব্যাপারটা এমন নয় যে দুর্ঘটনায় তাদের সরাসরি হাত থাকে। তারপরও তারা নিজ থেকেই দায় কাঁধে নিয়ে পদত্যাগ করেন। কেন তারা সব কিছুর চেয়ে পদত্যাগকেই তখন বড় করে দেখেন? প্রথমত, দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ ও তাদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর জন্য এর চেয়ে বড় আর কোনো ত্যাগ হয় না। দ্বিতীয়ত, এর মাধ্যমে ঘটনার গুরুত্বকে জাতির সামনে সবচেয়ে ভালোভাবে তুলে ধরা যায়। আমাদের দেশের মাননীয়রা ওসবেরআরও পড়ুন