Main Menu

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২০th, ২০১৮

 

সঙ্গীতশিল্পী সাবা তানি আর নেই

বিনোদন ডেস্কঃ নব্বই দশকের জনপ্রিয় সংগীত তারকা সাবা তানি মৃত্যুবরণ করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন। গতকাল সকালে উত্তরার বাসায় বাথরুমে মৃত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৯ বছর। তার আত্মীয় অভিনেত্রী তাহমিনা সুলতানা মৌ জানান, দীর্ঘদীন ধরে সাবা তানি নি¤œ রক্তচাপে ভুগছিলেন। গতকাল তিনি বাসায় একাই ছিলেন। আমার মনে হয়, বাথরুমে উনি যাওয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন, যেহেতু বাসায় কেউ ছিলো না, তাই কেউ চিকিৎসকের কাছে নিতে পারেনি। সাবা তানির একমাত্র ছেলে এখন যুক্তরাজ্যে থাকেন। উল্লেখ্য, আশি ও নব্বইদশকে টেলিভিশন ও মঞ্চে গান ও গজলআরও পড়ুন


ফোরজি যুগে প্রবেশ করল বাংলাদেশ

স্টাফ রিপোর্টারঃ চতুর্থ প্রজন্মের (ফোরজি) মোবাইল ফোন সেবায় প্রবেশ করলো বাংলাদেশ। গতকাল (সোমবার) থেকেই দেশে চালু হয়ে গেছে দ্রতগতির ইন্টারনেট সেবা ফোরজি। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে অপারেটরদের হাতে ফোরজি লাইসেন্স হস্তান্তর করে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিটিআরসি। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার সবার হাতে তুলে লাইসেন্স তুলে দেন। সবার প্রথমে লাইসেন্স তুলে দেওয়া হয় রাষ্ট্রীয় মোবাইল অপারেটর টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মোঃ গোলাম কুদ্দুসের হাতে। এরপর একে একে বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও)এরিক অস, গ্রামীণফোনের সিইও মাইকেল ফোলি , রবি সিইও মাহতাব উদ্দীন আহমেদের হাতে লাইসেন্স তুলে দেওয়াআরও পড়ুন


ম্যাডাম থেকে তিনি রূপান্তরিত হয়েছেন এক মমতাময়ী মাতৃ রূপে

মোবায়েদুর রহমানঃ বেগম জিয়াকে সাজা দেওয়ার পরবর্তী ১১ দিনের ঘটনাবলী দেখে আওয়ামী লীগ ও সরকারী নেতাদের রীতিমত আক্কেল গুড়ুম। তারা ভাবলেন কি, আর হলো কি। খালেদা জিয়ার সাজাকে কেন্দ্র করে শেষ পর্যন্ত কোথাকার পানি কোথায় দিয়ে দাঁড়াবে সেটা এখনও সঠিক ভাবে বলতে পারা না গেলেও ঘটনা প্রবাহ যেভাবে গড়াচ্ছে তার ফলে আওয়ামী লীগের সব হিসেব লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। ফলে তারাও এসব বিষয় নিয়ে নতুন করে হিসাব নিকাশ করতে বসেছে এবং দাবার ছক নতুন করে সাজাতে শুরু করেছে। একজন শিক্ষিত ভদ্রলোক আমাকে বললেন যে আওয়ামী লীগ এই খেলায় প্রথম রাউন্ডে প্রচন্ড হোঁচটআরও পড়ুন


আমি প্রত্যাশা করি খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক

স্টাফ রিপোর্টারঃ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখন যে অবস্থায় আছেন, তাতে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা। তিনি বলেন, ‘এক্ষেত্রে উচ্চ আদালত যদি নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত দেন, তাহলে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। তবে আমি প্রত্যাশা করি, সমস্যার সমাধান করে খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক।’ সোমবার দুপুরে সুপ্রিমকোর্টে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘যেহেতু তিনি আপিল করেননি, তার মানে অভিযুক্ত অবস্থায় আছেন। সুতরাং এ অবস্থায় তিনি নির্বাচন করতে পারবেন না। উচ্চ আদালতে গেলেআরও পড়ুন


বিএনপির কে প্রধান হলো, না হলো এতে শেখ হাসিনার মাথা ব্যথা কেনো?

স্টাফ রিপোর্টারঃ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে স্পষ্ট সরকার বিএনপি এবং খালেদা জিয়াকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে চায়। তবে একাদশ নির্বাচনে খালেদা জিয়াকে বাইরে রেখে সরকার ‘ফাকা মাঠে গোল’ দিতে চাইলে জনগন তা গ্রহন করবে না। গতকাল (সোমবার) বিকালে গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য দেবার পর রাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপি মহাসচিব এক তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে মিথ্যাচার করেছেন। এমন কতগুলো কথা বলেছেন যার সাথে সত্যের কোনো সম্পর্ক নেই। নির্বাচন নিয়ে উনি (প্রধানমন্ত্রী) কথা বলছেন, নির্বাচন ঠেকে থাকবে না বলেছেন।আরও পড়ুন