Main Menu

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১১th, ২০১৮

 

মিথ্যা নথি তৈরির অভিযোগে তদন্ত কর্মকর্তাসহ ছয়জন সাক্ষীর শাস্তির আবেদন

আইন-আদালত ডেস্কঃ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার বলেছেন, সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল মইন উ আহমেদকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মিথ্যা মামলার রূপকার। প্রবীন এই আইনজীবী আরো বলেন, মাইনাস টু থিওরির অংশ হিসেবে খালেদার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে দুদক। বেগম খালেদার রাজনৈতিক জীবন ধ্বংসের জন্য মিথ্যা মামলা করা হয়েছে দাবি করেন প্রবীন এই আইনজীবী। গতকাল বুধবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানিতে ঢাকার বিশেষ জজ-৫-এর বিচারক আখতারুজ্জামানের আদালতে এসব কথা বলেন। আজ (বৃহস্পতিবার) ফের যুক্তিতর্ক শুরু হবে। আজ যথা সময়ে খালেদাআরও পড়ুন


আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নির্ঘাত পরাজয় হবে

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, গণতন্ত্রের রাজনীতি মানুষকে খুশি রাখে। কিন্তু আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে দেশের মানুষ খুশি না। এমন একসময় আসবে যখন আওয়ামী লীগ বেরোবার পথ পাবে না। বুধবার বিকালে দিঘিরচালা বাজারে সখীপুর উপজেলার কাকড়াজান ইউনিয়ন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বঙ্গবীর বলেন, আবারও আওয়ামী লীগ ভাবছে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তারা ক্ষমতায় যাবে। ভোট হলে আওয়ামী লীগের নির্ঘাত পরাজয় হবে। তিনি বলেন, আর যদি ভোট না হয় তাহলে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করবে। আর এতেইআরও পড়ুন


বঙ্গবন্ধুর ছবির পাশে কোনো মাদক ব্যবসায়ীর ছবি থাকতে পারে না-ড. কামাল

স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশে এখন আধিপত্য বজায় রাখতে গিয়ে খুন করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট আইনজীবী ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেছেন, আমাদের দলে কেউ আধিপত্যবাদী হওয়ার অপচেষ্টা করে না। আধিপত্য বজায় রাখা, কাউকে খুন, গুম করা তো বঙ্গবন্ধুর চেতনা নয়। তার আদর্শও নয়। এটা সুস্থ রাজনীতির ষোলো আনা পরিপন্থী। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে গণফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ড. কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু মুক্তিযোদ্ধাদের অর্জন দেখেই বলেছেন বাঙালি মানুষ হয়েছে। দেশে মানুষের সংখ্যাই বেশি। দেশে কিছু বদ আছে।আরও পড়ুন


পদ্মা সেতু নিয়ে খালেদা জিয়ার বক্তব্য পাগলের প্রলাপ -প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টারঃ বহুল আলোচিত প্যারাডাইস পেপারসে প্রকাশিত ‘জিয়া পরিবার’র অর্থ পাচারের চিত্র জাতীয় সংসদে তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ফজিলাতুন নেসা বাপ্পির প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব তথ্য তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রীর উত্থাপিত পাচারের তালিকায় রয়েছেন- বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, আরাফাত রহমান কোকো ও তার স্ত্রী শর্মিলা রহমান। এ তালিকায় আরও আছে আওয়ামী লীগ-বিএনপির শীর্ষ নেতাসহ প্রায় অর্ধশত ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের কর্ণধারদের নাম। এছাড়া জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে বেলজিয়ামে ৭৫০ মিলিয়ন ডলার এবং মালয়েশিয়ায় ২৫০ মিলিয়নআরও পড়ুন