Main Menu

সোমবার, নভেম্বর ২৭th, ২০১৭

 

বারী সিদ্দিকীর গানের কথায় ফিলোসফিকাল এলিমেন্ট ছিল

বিনোদন ডেস্কঃ ভারতবর্ষ থেকে আসার পরই আমি গান গাওয়ার সিদ্ধান্ত নিই। কারণ ওখানে আমি নর্থ ইন্ডিয়ান ক্লাসিক্যাল মিউজিকের সঙ্গে একটা দীর্ঘসময় ব্যয় করি। এ ধারার অনেক গুণী শিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালকের সঙ্গে কাজ করার সৌভাগ্য হয় আমার। এ ধরনের মিউজিকের সঙ্গে আমার একটা আত্মিক সম্পর্কও গড়ে ওঠে। কিন্তু আমার ভেতরে গাছ-পালার মতো বেড়ে উঠেছে এবং খুব শক্তভাবে শেকড় গেড়ে আছে বাংলা ফোক গান। নিজে গান গাওয়ার কথা যখন ভাবছিলাম, তখন একদিকে আমাকে ফোক গান খুব টানছিল, অন্যদিকে ক্লাসিকের প্রতি সদ্য গড়ে ওঠা ভালোবাসাও আমাকে খুব হাতছানি দিচ্ছিল। দেশে ফিরে চিন্তা করি, ফোকআরও পড়ুন


চরমোনাইর দরবার শরিফের তিন দিনব্যপী মাহফিল শুরু

ধর্ম ডেস্কঃ বরিশালে চরমোনাইয়ে অগ্রহায়ন মাসের ৩ দিনব্যাপী বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল গতকাল থেকে শুরু হয়েছে। গতকাল (রোববার) বাদ জোহর হযরত মাওলানা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম-পীর ছাহেব চরমোনাইর উদ্বোধনী বয়ানের মধ্য দিয়ে মাহফিলের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম দিনে উদ্বোধনী বয়ানে পীর ছাহেব চরমোনাই নিয়তের পরিশুদ্ধি সম্পর্কে আলোচনা করেন। পীর সাহেব তার বয়ানে বলেন, মাহফিল ময়দানে দুনিয়া লাভের কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে কেউ এসে থাকলে তাদের নিয়ত পরিবর্তন করে একমাত্র আল্লাহকে রাজি খুশি করতে এ ময়দানে বসতে হবে। কারণ নিয়তের ওপর সকল কাজ নির্ভরশীল। তাই নিয়তকে আগে পরিশুদ্ধ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, দুনিয়াআরও পড়ুন


যুগান্তকারী এই মামলায় সাজা প্রদানে আমরা তিনজন বিচারক একমত

স্টাফ রিপোর্টারঃ চাঞ্চল্যকর পিলখানা হত্যা মামলায় হাইকোর্টের রায় পড়া প্রথম দিনের মতো শেষ হয়েছে। সোমবার পূর্ণাঙ্গ রায় পড়া শেষ হতে পারে। আসামি সংখ্যার দিক দিয়ে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এ মামলার রায়ের পর্যবেক্ষণে ভিন্ন মত থাকলেও আদেশের অংশের বিষয়ে তিন বিচারপতিই একমত হয়েছেন। রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেন, পিলখানায় হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে দেশে একটা ভয়াবহ ও ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছিল। ওই দিন ৫৭ জন মেধাবী সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জনকে হত্যা করা হয়। এমনকি বিডিআর (বিজিবি) মহাপরিচালকের স্ত্রীকেও হত্যা করা হয় নৃশংসভাবে। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়ও এত সংখ্যক সেনা কর্মকর্তা নিহত হননি। এটা ছিলআরও পড়ুন


৫ জানুয়ারির ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে ফের গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশের গণতন্ত্র আবারো গভীর খাদের কিনারে গিয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, ৫ জানুয়ারির ভোটারবিহীন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে ফের গণতন্ত্রকে হত্যা করে একদলীয় দু:শাসনের করাল গ্রাসে গিলে ফেলা হয়েছে বহুদলীয় গণতন্ত্রের পথচলা। গণতন্ত্রের শত্রুরা গণতন্ত্রের সকল প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে ফেলেছে। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শহীদ ডা. মিলন দিবস উপলক্ষে গতকাল (রোববার) গণমাধ্যমে দেয়া এক বাণীতে তিনি এসব কথা বলেন। বেগম জিয়া বলেন, শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলন সামরিক শাসন বিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ইতিহাসে একটি অবিস্মরণীয় নাম। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন চলাকালে ১৯৯০ সালের ২৭আরও পড়ুন


জাতি গঠনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সরকারকে সহযোগিতা করছে সেনাবাহিনী

স্টাফ রিপোর্টারঃ  বাংলাদেশ সেনাবাহিনী নিজস্ব কর্মকান্ডের বাইরে সমাজ ও জাতি গঠনের কাজে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সরকারকে সহযোগিতা করছে বলে জানিয়েছেন সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক। গতকাল রোববার ঢাকায় আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে সশস্ত্র বাহিনী দিবস ২০১৭ উপলক্ষে স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানের জন্য খেতাবপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর সদস্যদের সম্মানে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি একথা জানান। সেনাপ্রধান আরো বলেন, সেনাবাহিনী বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। দেশের অখন্ডা, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ধরে রেখে সংবিধান সমুন্নত রাখার আর্দশিক প্রেরণায় সেনাবাহিনীর উপর অর্পিত সকল দায়িত্ব নিরলসভাবে পালন করে যাচ্ছে। সেনাবাহিনীর নিজস্ব কর্মকান্ডের বাইরে সমাজিক ও জাতি গঠনেআরও পড়ুন