Main Menu

সোমবার, সেপ্টেম্বর ৫th, ২০১৬

 

হজ মুসলিম উম্মাহর বিশ্ব সম্মেলন

মুফতি মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম: হজ আরবি শব্দ। এর আভিধানিক অর্থ ইচ্ছা বা সংকল্প করা। ইসলামী শরিয়তের পরিভাষায় মহান আল্লাহ তাআলার নির্দেশ পালনার্থে নির্দিষ্ট সময়ে, নির্ধারিত তারিখে, নির্দিষ্ট স্থান তথা কাবা শরিফ ও তত্সংশ্লিষ্ট স্থানগুলো জিয়ারত করার সংকল্প করাকে হজ বলা হয়। হজ ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে অন্যতম। এটি শারীরিক ও আর্থিক ইবাদতগুলোর মধ্যে অনন্য। আর্থিক ও দৈহিকভাবে সামর্থ্যবানদের ওপর জীবনে একবার হজ করা ফরজ। হজে রয়েছে ইহলৌকিক ও পারলৌকিক নানাবিদ শিক্ষা। সে শিক্ষাগুলো নিম্নে উল্লেখ করা হলো : স্রষ্টার নির্দেশ পালন : হাজিরা হজ আদায় করে মহান আল্লাহর নির্দেশ পালন করেআরও পড়ুন


হরতাল ডেকে মাঠে নেই জামায়াত

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মীর কাসেম আলীর ফাঁসির প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামীর ডাকা হরতালের প্রভাব রাজধানীতে পড়েনি। জামায়াত বা তাদের ছাত্রসংগঠন ইসলামী ছাত্রশিবিরের কোনো পিকেটিং বা কর্মসূচি নেই। হরতালবিরোধীদের কর্মকাণ্ডও সেভাবে নেই। জনজীবন স্বাভাবিক। গত শনিবার রাতে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে মীর কাসেমের ফাঁসি কার্যকর হয়। ওই দিনই এর প্রতিবাদে জামায়াত সারা দেশে আধা বেলা হরতাল ডাকে। আজ সোমবার বেলা দুইটায় এই হরতাল কর্মসূচি শেষ হবে। রাজধানীর মগবাজার, মালিবাগ, কারওয়ান বাজার, ফার্মগেট, শাহবাগ, গুলিস্তান এলাকায় হরতালের তেমন প্রভাব লক্ষ করা যায়নি। বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে সামনে দলের নেতা-কর্মীদের তেমন ভিড় ছিল না।আরও পড়ুন


সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

 সাবেক অর্থমন্ত্রী, বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য, এম সাইফুর রহমানের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে  বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ  প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে জাতীয়তাবাদী দর্শনকে বুকে ধারণ করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে স্বৈরাচারের কবল থেকে গণতন্ত্রের পথে উত্তরণে এম সাইফুর রহমানের অবদান দেশবাসী ও দল চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। গতকাল রবিবার এম সাইফুর রহমানের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক বাণীতে তিনি এসব কথা বলেন।   : মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের স্বনামধন্য সাবেক অর্থমন্ত্রী, বরেণ্য রাজনীতিবিদ এম সাইফুর রহমানের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকীতে আমিআরও পড়ুন


ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে যুবসমাজকে মাদক-জঙ্গিবাদ থেকে ফেরানো সম্ভব : প্রধানমন্ত্রী

বাসস : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের যুব সমাজকে ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় রাখতে পারলেই কেবল সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের ভয়াবহতা থেকে তাদের মুক্ত রাখতে পারবো। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড যুবসমাজের মাঝে শৃঙ্খলাবোধ, অধ্যবসায়, দায়িত্ববোধ ও কর্তব্যপরায়ণতা এবং দেশপ্রেম সৃষ্টি করে। আমরা তাদেরকে যতবেশি খেলাধুলা এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করতে পারবো ততবেশি তারা শারীরিক এবং মানসিকভাবে সুস্থ থাকবে।’ খেলাধুলার সাথে স্বাস্থ্য ও মনের একটা নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সুস্থ দেহ মানেই সুস্থ মন। খেলাধুলা জীবনকে করে সুন্দর ও পরিশীলিত।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকালে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে দেশসেরাআরও পড়ুন