Main Menu

এবারের ঈদ ইসরায়েলি আগ্রাসনে রক্তাক্ত ফিলিস্তিনি মুসলিমদের প্রতি উত্‍সর্গ করলাম

মোহামদ নুরুজ্জামানঃ দীর্ঘ এক মাসের সংযম সাধনার পর ঘরে ঘরে, জনে জনে আনন্দ ও খুশির বার্তা পৌঁছে দিতে আবার এসেছে ঈদুল ফিতর। পবিত্র রমজানের শুরু থেকেই এই দিনটির জন্য মুসলিম বিশ্ব অপেক্ষা করে থাকে। বিশ্বজুড়ে মুসলিম সমাজে দিনটি বিশেষ আনন্দঘন পরিবেশে উদযাপন করা হয়।

কিন্তু এবারের ঈদুল ফিতর ও রমজানের সিয়াম সাধনা এবং জুম্মাবারগুলো বৈশ্বিক করোনা মহামারীর আগ্রাসী থাবার শিকার হয়েছে। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। সেই সঙ্গে বাড়ছে নতুন করে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আজ ঈদ। মুসলিমদের জন্য সবচেয়ে খুশির দিন। তবে ফিলিস্তিনিদের জন্য নয়। ইসরায়েলি বোমারু বিমানের গর্জন আর বোমার আঘাতে তছনছ হয়েছে তাদের ঈদ আনন্দ। তাই এবারের ঈদ ইসরায়েলি আগ্রাসনে রক্তাক্ত ফিলিস্তিনি মুসলিমদের প্রতি উত্‍সর্গ করলাম।

ঈদ একটি আনন্দ উৎসব। হিংসা, বিদ্বেষ, হানাহানি ভুলে মানুষে মানুষে আনন্দের বন্যা বয়ে যায় এই দিনটিতে। এই আনন্দ উৎসব তখনই তাত্পর্যময় হয়ে ওঠে যখন তা একটি সর্বজনীন রূপ নেয়। ঈদের আনন্দ সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে হয়। তাই ইসলাম ধর্মে ধনী-গরিবের মধ্যে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ারও একটি সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে ফিতরা ও জাকাত আদায়ের মাধ্যমে।

ঈদ শুধু মুসলমানদের প্রধান একটি ধর্মীয় উৎসবই নয়, সৌভ্রাতৃত্ব শেখার গুরুত্বপূর্ণ উপলক্ষও। এই উৎসবের মাধ্যমে প্রত্যেক মুসলমান একে অপরের আরো কাছাকাছি আসে। পবিত্র রমজান আমাদের চিত্তশুদ্ধির যে শিক্ষা দিয়েছে, ঈদুল ফিতর সেই শিক্ষা কাজে লাগানোর দিন। আজ একটি দিনের জন্য হলেও ধনী-গরিব সবাই দাঁড়াবে এক কাতারে। ভুলে যেতে হবে সব বৈষম্য,সব ভেদাভেদ। ঈদুল ফিতর আনন্দ, ইবাদত ও সুসংঘবদ্ধতার মহান শিক্ষা।

বিশ্ববাসী করোনা মহামারীর শিকার। এমহা বিপর্যয় থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য মহান আল্লাহর শরানাপন্ন হওয়া ব্যতীত গত্যন্তর নেই। বিশেষভাবে দুনিয়ার সকল মুসলিম সমাজকে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে না পারায় মাতম না করে সর্বশক্তিমান আল্লাহর দরবারে এ বিপদ মুক্তির জন্য দোয়া-মোনাজাত করতে হবে।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দৈনিক লাইট অফ টাইমস’র সকল পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা। প্রতিটি দিন হোক ঈদের মত। ঈদ মোবারক।

আসুন, আমরা দয়াময় প্রভুর দরবারে সকাতর প্রার্থনা করি তিনি যেন ঈদ উদযাপনের মাধ্যমে বিশ্বকে সব বিপদ-আপদ থেকে রক্ষা করেন। আমিন।

প্রকাশক ও চেয়ারম্যান সম্পাদকীয় বোর্ড।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: